মেয়েদের কোথায় তিল থাকলে ভাগ্যবতী হয়?? মেয়েদের জেনে রাখা উচিত

জানা-অজানা

তিল আছে আপনার, কোথায় থাকলে সৌভাগ্যবান হবেন? জানেন আপনি কতটা ভাগ্যবান? দেখুন কি কি ঘটতে পারে আপনার সাথে

আমাদের শরীরের যেকোন জায়গায় তিলের উপস্থিতি স্বাভাবিক। আর এই তিল আমাদের যেমন সৌন্দর্য বাড়াতে সাহায্য করে, তেমনি আমাদের জীবনে উন্নতির পথে সুগম করে।পুরাতন সমুদ্র শাস্ত্রে তিল অনুযায়ী ভাগ্য নির্ধারণের প্রথা বর্ণনা করা আছে।তিল অবস্থান দেখে আমরা ভবিষ্যৎ সম্পর্কেও আমরা ঞ্জান লাভ করতে পারি। শরীরের বিভিন্ন অংশে তিলের উপস্থিতি, রং, আকৃতি প্রভৃতি দেখে আমরা আমাদের ভবিষ্যৎ সম্পর্কে ধারণা করতে পারি। প্রাচীন সমুদ্র শাস্ত্রে তিল দেখে ভাগ্য নির্ধারণের পদ্ধতি বর্ণনা করা আছে। তিল দেখে আমরা ভবিষ্যত্ সম্পর্কেও জানতে পারি। আপনি সৌভাগ্যবান হতে পারেন বা আপনি দুর্ভাগ্যবান হতে পারেন।

 

 

body-mol

আরো পড়ুনঃ বলিউডে পা রাখতে চলেছেন শাহরুখ কন্যা!

শরীরের বিভিন্ন অংশে তিলের উপস্থিতি, রং, আকৃতি প্রভৃতি দেখে আমরা আমাদের ভবিষ্যত্ সম্পর্কে ধারণা করতে পারি। দীর্ঘ গবেষণার পর ভারতীয় উপমহাদেশীয় পণ্ডিতরা এ তত্ত্ব আবিষ্কার করেন।
স্ত্রী বা পুরুষের মুখমণ্ডলের আশপাশের তিল তাদের সুখী ও ভদ্র হওয়ার সঙ্কেত দেয়। মুখে তিল থাকলে ব্যক্তি ভাগ্যে ধনী হন। তার জীবনসঙ্গী খুব সুখী হয়। তারা সারা জীবন সুখী হন

nak a til

 

 

আরো পড়ুনঃ গার্লফ্রেন্ডর অভিমান ভাঙ্গানোর জন্য ৩০০টি হোর্ডিং লাগলো রাস্তায়!

নাকে তিল থাকলে ব্যক্তি প্রতিভাসম্পন্ন হন এবং সুখী থাকেন। যে নারীর নাকে তিল রয়েছে তারা সৌভাগ্যবতী হন।যাদের ঠোঁটে তিল রয়েছে তাদের হৃদয়ে ভালোবাসায় ভরপুর। তবে তিল ঠোঁটের নীচে থাকলে সে ব্যক্তির জীবনে দারিদ্র্য বিরাজ করে।গালে লাল তিল থাকা শুভ। বাঁ গালে কালো তিল থাকলে, ব্যক্তি নির্ধন হয়। কিন্তু ডান গালে কালো তিল থাকলে তা ব্যক্তিকে ধনী করে। এবং অন্য কেউ ধনী হতে সাহায্য করে। এবং সৌভাগ্যবানও হতে পারেন।

mathay til

আরো পড়ুনঃ স্কুল শিক্ষিকা পালালেন স্কুলের ছাত্রের সঙ্গে।

মাথার মাঝখানে তিল থাকলে তা নির্মল ভালোবাসার প্রতীক। ডান দিকে তিল থাকা কোনো বিষয়ে নৈপুণ্য দর্শায়। আবার যাদের মাথার বাঁ দিকে তিল আছে তারা অর্থের অপচয় করেন। মাথার ডান দিকের তিল ধন ও বুদ্ধির চিহ্ন। বাঁ দিকের তিল নিরাশাপূর্ণ জীবনের সূচক।ডান চোখের মণিতে তিল থাকলে ব্যক্তি উচ্চ বিচার ধারা পোষণ করে। বাঁ দিকের মণিতে যাদের তিল থাকে তাদের বিচার ধারা ভালো হয় না। যাদের চোখের মণিতে তিল থাকে তারা সাধারণত ভাবুক প্রকৃতির হন। রঙের চোখে তিল থাকে তারা কোন জিনিস কে ভালো ভাবে দেখতে পারে। চোখে অন্যদের তুলনায় ভালো হয়।

eyebrow-mole

 

 

আরো পড়ুনঃ  হটাৎ ভয়ে বা উত্তেজনায় শরীরে কাঁটা দেয় কেন?

চোখের পাতায় তিল থাকলে ব্যক্তি সংবেদনশীল হন। তবে যাদের ডান পাতায় তিল থাকে তারা বাঁ পাতায় তিলযুক্ত লোকের তুলনায় বেশি সংবেদনশীল। কানে তিল থাকা ব্যক্তি দীর্ঘায়ু হন।ডানদিকের নিতম্বে তিল জ্ঞান এবং সৃজনশীলতার প্রতীক। এঁরা বেশিরভাগই শিল্পী প্রকৃতির হয়ে থাকেন। বাঁদিকের নিতম্বে তিলের অর্থ দারিদ্র্য।

আরো পড়ুনঃ বিয়েতে গিফট খোলার পর বরের মৃত্যু,কে দিলো এমন গিফট? আর কি ছিল গিফটে ?

যৌনাঙ্গে তিল থাকলে তার যৌনক্ষুধা প্রবল হয়। এঁরা বিবাহিত মহিলা বা পুরুষদের প্রতি আকৃষ্ট হন।
যাদের ভ্রুতে তিল থাকে তারা প্রায়ই ভ্রমণ করেন। এদের সারা পৃথিবী ঘোরার ইচ্ছা থাকো। কি ডান ভ্রুতে তিল থাকলে ব্যক্তির দাম্পত্য জীবন সুখী হয়। আবার বাঁ ভ্রুর তিল দুঃখী দাম্পত্য জীবনের সঙ্কেত দেয়।

If-there-is-sesame-in-all-these-places-in-the-body

 

 

আরো পড়ুনঃ সিগারেট তৈরি মূল উপাদান ইঁদুরের বিষ্ঠা, জেনে নিন এই লিংকটি পড়ে।

আসুন দেখি আমাদের ভাগ্য সম্পর্কে তিল কী বলে।
কোনো ব্যক্তির শরীরে ১২টির বেশি তিল হওয়া শুভ মনে করা হয় না। ১২টার কম তিল হওয়া শুভ ফলদায়ক।

dudute til

আরো পড়ুনঃ আপনারা কী জানেন গুগলে মেয়েরা কোন ১০টি খবর সবচেয়ে বেশি খোঁজে ও দেখে, চলুন দেখে নেওয়া যাক।

মেয়েদের দুই স্তনের মাঝখানে থাকলে তা নির্মল ভালোবাসার প্রতীক। ডান দিকে তিল থাকা কোনো বিষয়ে নৈপুণ্য দর্শায়। আবার যাদের স্তনের বাঁ দিকেতিল আছে তারা অর্থের অপচয় করেন। স্তনের ডান দিকের তিল ধন ও বুদ্ধির চিহ্ন। বাঁ দিকের তিল নিরাশাপূর্ণ জীবনের সূচক।
স্তনের বোটায় থাকলে মেয়ে সংবেদনশীল হন। তবে যাদের ডান স্তনে থাকে তারা বেশি সংবেদনশীল হয় অন্যদের তুলনায়। কারণ তারা অন্যদের তুলনায় আলাদা হয়ে থাকেন।

til kothay tghaka uchit

 

 

আরও পড়ুনঃ মোটা মেয়েদের বিয়ে করার অনেক সুবিধে আছে । এই গোপোন তথ্য গুলি জানলে আপনিও চমকে যাবেন!!

ভালো লাগলে শেয়ার করুন অন্যদের সাথে, এই ধরনের অন্যান্য আপডেট পেতে আমাদের পেজটি লাইক করুন, আপনার মতামত জানাতে এখানে কমেন্ট করুন।

2 thoughts on “মেয়েদের কোথায় তিল থাকলে ভাগ্যবতী হয়?? মেয়েদের জেনে রাখা উচিত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *