Follow Us

পাকিস্তানের পর এবার চীনকে শিক্ষা দিতে চলেছে ভারত, সীমান্তে অত্যাধুনিক হাতিয়ার মোতায়েন করে

 

পাকিস্তানের পর এবার চীনকে শিক্ষা দিতে চলেছে ভারত, সীমান্তে অত্যাধুনিক হাতিয়ার মোতায়েন করে

পূর্ব লাদাখের প্যাংগঙ লেকের কাছে সম্মুখ সমরে নামে ভারত ও চিনের সেনাবাহিনীরা। যার জেরে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে সীমান্ত। অবশেষে প্রতিনিধি পর্যায়ে বৈঠকের পরই বিষয়টি নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসা হয়ছে বলে জানা গিয়েছে।

 

একটি সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত খবর অনুসারে, বুধবার সকালে প্যাংগঙ লেকের উত্তরের তীরে টহলদারি চালাচ্ছিল ভারতীয় সেনারা। সেইসময়ে তাদের পথ রুখে দাঁড়ায় চিনা সেনারা। কারণ এই লেকটি তিব্বত থেকে লাদাখ পর্যন্ত এসেছে। প্রসঙ্গত, তিব্বত থেকে লাদাখ পর্যন্ত বিস্তীর্ণ এলাকা জুড়ে থাকা লেকটির দুই-তৃতীয়াংশ রয়েছে চিনের অধীনে। আর সেই এলাকা টহল দেওয়ার সময়েই দুই সেনার মধ্যে একটা উত্তেজনার আবহ তৈরিহয়।

 

 

 

ভারত আর চীনের সেনার মধ্যে মাঝে সাঝেই উত্তেজনার খবর আসে। ভারত এবার চীন সীমান্তে অরুনাচল প্রদেশে নিজেদের সামরিক শক্তি বাড়ানোর জন্য আধুনিক আমেরিকান হাতিয়ার মোতায়েন করার পরিকল্পনা করছে। ওই হাতিয়ার গুলোর মধ্যে এম ৭৭৭ হাউইৎজার (M777 Hovitzer) কামান আর চিনুক হেলিকপ্টারের নাম আছে। সুত্র অনুযায়ী, এই অভিযানের কোড নেম ‘হিম বিজয়” দেওয়া হয়েছে। এই এক্সরেসাইজ নর্থ ইস্ট ১৭ মাউন্টেন স্ট্রাইক ফোর্সের যুদ্ধ ক্ষমতা পর্যবেক্ষণ করার জন্য করা হয়েছে। এই যুদ্ধ অভ্যাসে ভারতীয় বায়ুসেনাও যুক্ত হবে। বায়ুসেনা মুখ্য রুপে যুদ্ধের সময় হাওয়া থেকে দেওয়া সহায়তা প্রদান করবে।

 

 

 

 

 

সেনার এক বরিষ্ঠ আধিকারিক বলেন, সেনা যাতে এই উন্নত হাতিয়ারের ব্যাবহার ঠিক মতো করতে পারে, সেই জন্য হিমবিজয় অভ্যাসের সময়ে ১৭ মাউন্টেন স্ট্রাইক ফোর্সকে এম ৭৭৭ হাউইৎজার দেওয়া হবে। এই যুদ্ধ অভ্যাসে আমেরিকার থেকে কেনা চিনুক হেলিকপ্টারকেও যুক্ত করা হবে। এই অত্যাধুনিক হেলিকপ্টারকে ভারতীয় সেনা এই বছরের ২৫ মার্চ আমেরিকার থেকে পেয়েছিল। সেনার এক আধিকারিক এর অনুযায়ী, চিনুক হেলিকপ্টার নর্থ ইস্টের কোন এলাকায় মোতায়েন করা হয়নি। কিন্তু আগামী দিনে এই হেলকপ্টারকে নর্থ ইস্টে মোতায়েন করা হবে। হিম বিজয় যুদ্ধ অভ্যাসে এই হেলিকপ্টারের ব্যাবহার করা হবে।

 

 

 

এম ৭৭৭ আলট্রা লাইট হাউইৎজারকে ভারতীয় সেনায় কে-৯ বজ্র আর ধনুশ হাউইৎজার এর সাথে যুক্ত করা হয়েছিল। এই সময় সেনার কাছে ১৪৫ টি হাউইৎজার আছে। হাউইৎজারকে মুখ্য রুপে সেইসব পাহাড়ি এলাকায় ব্যাবহার করা যায়, যেখানে অন্যান্য বড়সড় হাতিয়ার নিয়ে যাওয়া যায়না। হাউইৎজারকে চিনুক হেলিকপ্টার থেকে এয়ারড্রপ করা যেতে পারে। আর এর জন্য লাদাখ আর অরুনাচল প্রদেশে এই হাউইৎজার সেনার অনেক সুবিধা করে দিতে পারে।