মহালয়ার সময় থেকে ভারী ও মাঝারি বৃষ্টিতে ভিজতে পারে গোটা দক্ষিণবঙ্গ, জানালো আবহাওয়া দপ্তর

0
1523

মহালয়ার সময় থেকে ভারী ও মাঝারি বৃষ্টিতে ভিজতে পারে গোটা দক্ষিণবঙ্গ, জানালো আবহাওয়া দপ্তর

বাকি আর হাতে গোনা কয়েকটা দিন। মাস ফুরোলেই শুরু হবে শারদোৎসব। কিন্তু পুজোয় কি এবার বৃষ্টি হবে? কী বলছে হাওয়া অফিস?

 

কখনও মেঘ তো কখনও রোদ। গত কয়েকদিন ধরে মেঘের অবস্থা ঠিক এরকমই। আর মেঘের এই খামখেয়ালিপনার কারনে দুর্গাপুজোর আগে বাঙালির মনে জমেছে চিন্তার মেঘ। ইতিমধ্যেই হাওয়া অফিসের তরফে জানানো হয়েছে দুর্গাপুজোর সময় বা মহালয়ার পর থেকে বৃষ্টির সম্ভাবনা প্রবল,

 

 

 

মহালয়ার সময় থেকে অঝোর বৃষ্টিতে গোটা দক্ষিণবঙ্গ ভিজতে পারে বলেই আশঙ্কার খবর শোনাল হাওয়া অফিস।

 

আপাতত আগামী তিন দিন বৃষ্টির কোনও সম্ভাবনা নেই। তবে মঙ্গলবার পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগরে একটি নিম্নচাপ তৈরি হতে পারে। নিম্নচাপটি অন্ধ্রপ্রদেশ উপকূলের দিকে সরবে। কিন্তু তাতেও রেহাই পাবে না পুজোর বাংলা। দখিনা-পুবালি বাতাসের হাত ধরে নিম্নচাপ আরও শক্তি বাড়াবে। তার হাত ধরেই নতুন করে সক্রিয় হবে বর্ষা। ২৩ সেপ্টেম্বর, সোমবার থেকে বাড়বে বৃষ্টি। তার পরেরদিনও বৃষ্টির সম্ভাবনা প্রবল। ২৫ ও ২৬ সেপ্টেম্বর আরও বাড়তে পারে বৃষ্টির পরিমাণ। তাই পুজোর প্রস্তুতি যে কিছুটা হলেও বৃষ্টির জন্য বাধা পেতে পারে, তা বলাই বাহুল্য। বৃষ্টির পাশাপাশি প্যাচপ্যাচে গরমেও নাকাল হতে হবে উৎসবমুখর বাঙালিকে। হাওয়া অফিস সূত্রে খবর, আগামী কয়েকদিন তাপমাত্রা আরও বাড়বে। তার ফলে বজায় থাকবে আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তি।

 

 

পুজোর আগে বৃষ্টির আশঙ্কার পাশাপাশি আমবাঙালির মনের কোণে ঘুরপাক খাচ্ছে একটাই দুশ্চিন্তা। তাঁদের একটাই প্রশ্ন, পুজোর ঘোরাফেরার পরিকল্পনাও কি ভেস্তে দিতে বৃষ্টি? আবহাওয়া দপ্তর অবশ্য এ বিষয়ে কোনও সুস্পষ্ট উত্তর এখনও দেয়নি। তবে আবহবিদদের দাবি, বর্ষা বিদায়ের একদম গায়ে গায়েই এবছর পুজোর নির্ঘণ্ট। দুর্গাপুজো শুরু হচ্ছে ৪ অক্টোবর। দশমী ৮ অক্টোবর। এই সময়ে ঝেঁপে বৃষ্টি যে হবে না, তা বুক ঠুকে বলতে পারছে না আবহাওয়া দপ্তর। কারণ আনুষ্ঠানিকভাবে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গ থেকে বর্ষা বিদায় নেয় ১০ অক্টোবর। অর্থাৎ, পুজো এবার খাতায় কলমে বর্ষার মধ্যেই। উপরন্তু ইদানীং নিম্নচাপের দৌলতে বিদায়লগ্নেও আচমকা বর্ষা মারমুখী হয়ে উঠতেই পারে।